Home বিনোদন সরকারি অনুমতি পেলেও এইমুহূর্তে শুটিং শুরু হয়নি কোনও বাংলা ছবির – পিছিয়ে গেল গোলন্দাজের শুটিংও

সরকারি অনুমতি পেলেও এইমুহূর্তে শুটিং শুরু হয়নি কোনও বাংলা ছবির – পিছিয়ে গেল গোলন্দাজের শুটিংও

by banganews

কবে থেকে সিনেমা-সিরিয়ালের শুটিং হবে, তার রূপরেখা স্থির করার জন্য মঙ্গলবার বৈঠকে বসেছিলেন ইস্টার্ন ইন্ডিয়া মোশন পিকচার্স অ্যাসোসিয়েশন, আর্টিস্ট ফোরাম, ফেডারেশন অব সিনে টেকনিশিয়ানস অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া এবং ওয়েলফেয়ার অব অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন প্রোডিউসার্সের প্রধানরা।

অবশ্য এদিন এই মিটিংয়ে সিনেমা নিয়ে আলোচনা হলেও বেশি আলোচনা হয়েছে বাংলা ধারাবাহিক, মেগা সিরিয়ালের শুটিং নিয়েই।
তবে সরকারি অনুমতি পেলেও এইমুহূর্তে শুটিং শুরু হয়নি কোনও বাংলা ছবির। এই তালিকায় রয়েছেন এসভিএফ প্রযোজিত বিগ বাজেটের ছবি ‘ গোলন্দাজ ‘।

আরো পড়ুন – অষ্টম শ্রেণী ফেল করেছিলেন তিনি কিন্তু শখ যখন পেশা হয়ে যায় তখন কাহিনি হয় অন্যরকম

অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে গেল এই ছবির শ্যুটিং। ধ্রুব বন্দোপাধ্যায় পরিচালিত এই ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় রয়েছেন দেব। বেশ কয়েক বছর পরে এই ছবির মাধ্যমে এই প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে ফের একবার গাঁটছড়া বেঁধেছেন দেব। এই ছবি ঘোষণার দিন থেকেই দর্শকদের মধ্যে আগ্রহ ছিল তুঙ্গে। লকডাউনের আছে জোরকদমে চলছিল এই ‘ পিরিয়ড পিস ‘ এর শুটিং। কিছুদিন আগে এসভিএফ এর তরফে বলা হয়েছিল আগামী সপ্তাহেই শুরু হতে পারে এই ছবির শুটিং। সবার শারীরিক সুরক্ষার কথা চিন্তা করেই এই সিদ্ধান্ত তাদের তরফে নেওয়া হয়েছে। তবে হঠাৎ কেন এই ছন্দপতন ?

রাজ্যের বেঁধে দেওয়া নিয়ম অনুযায়ী সিরিয়াল -ছবির শুটিং ইউনিটে ৩৫ জনের বেশি কলাকুশলী রাখা যাবে না। বর্তমান অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে সবার স্বাস্থ্যের কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত। আর এতেই মুশকিলে পড়েছেন ছবির পরিচালক, প্রযোজকেরা। বিশেষ করে বিগ বাজেট বাংলা ছবির।
তাঁদের মতে, মাত্র এই কয়েকজন নিজে সিরিয়াল এর শুটিং সারা গেলেও ছবির ক্ষেত্রে অসম্ভব।

আরো পড়ুন –বিগ বি’র বিবাহবার্ষিকী, শুভেচ্ছা সঙ্গে অজানা গল্প

সমস্যা সেখানেই। বড় বাজাটের এই ছবিতে এত কম সংখ্যক লোক নিয়ে তো সম্পূর্ণই করা যাবে না শুটিংয়ের সব কাজ। পরিচালক স্বয়ং এই নিয়মকে স্বাগত জানানোর সঙ্গে সঙ্গে এই অসুবিধার কথাও তুলে ধরেছেন। তাঁর কথায়, ‘ এই সিদ্ধান্ত টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রির জন্য খুবই ভাল। তবে সিনেমার শুটিংয়ের ক্ষেত্রে একটু সমস্যা হবে। গোলন্দাজের সেটটা অন্যান্য ছবির থেকে অনেকটাই বড়। বাকি শুটিংয়ের পুরোটাই আউটডোরে। তাই যতক্ষণ না ছবির শুটিং শুরু করার যথাযথ পরিবেশ তৈরি হচ্ছে, ততক্ষণ অপেক্ষা করাই ভাল। মানুষের সুরক্ষা থেকে বড় আর কিছু হতে পারে না। আমি এডিটের কাজ করছি। অনেকটাই হয়ে গেছে। শেষ হলে বুঝতে পারব আর কতটা বাকি। প্রথম শিডিউলে এতটা ভাল কাজ হয়েছে তাই তাড়াহুড়ো করে শেষ করতে চাইছি না। ক্লাইম্যাক্সের সেকশন এখনও বাকি।”

You may also like

2 comments

Leave a Reply!