Home প্রযুক্তি রথযাত্রা ‘ডিজিটাল’ লোকারণ্য মহা ধুম-ধাম

রথযাত্রা ‘ডিজিটাল’ লোকারণ্য মহা ধুম-ধাম

by banganews
গোটা দেশ জুড়ে চলছে আনলক ১.০। লকডাউন কাটিয়ে নতুন করে ছন্দে ফেরার চেষ্টা করছে দেশ। এখনও পর্যন্ত দেশে ৪ লক্ষেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মৃতের সংখ্যা ১৪ হাজার ছুঁইছুঁই। পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ হাজার ৬৯৯জন। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫৬৯ জনের।
 আজ রথযাত্রা। তবে এক্ষেত্রেও করোনা সংক্রমণ রুখতে ডিজিটাল রথযাত্রা করার এক অভিনব পরিকল্পনা নিয়েছে ইসকন কর্তৃপক্ষ। বিশ্বে এটিই প্রথম ডিজিটাল রথযাত্রা। মোট ৬ টি মহাদেশে ২৩ ও ২৪শে জুন এই দু’দিন ধরে দেখা যাবে এই রথযাত্রা। এই গোটা বিষয়টির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ মার্সি ইন উইলস ‘। এই ব্যাপারে সত্যতা স্বীকার করে জানিয়েছেন মায়াপুর ইসকন এর সদর দফতরের অফিসার সুব্রত দাস।
এবার পর্দায় চোখ রেখেই জগন্নাথদেবের আশীর্বাদ গ্রহণ করতে হবে ভক্তদের। চলতি বছরের রথযাত্রা নিয়ে এই সংস্থার প্রধান উদ্দেশ্যে,করোনার কারণে ভক্তরা রাস্তায় বেরোতে পারবেন না এবং বড় করে উৎসব পালন করতে পারবেন না। তাই ভাবনাটা ছিল যে বলদেব এবং সুভদ্রার সঙ্গে সারা বিশ্বের ভক্তদের বাড়ি যাবেন জগন্নাথ।
মঙ্গলবার ২৩ জুন রীতি ও নিয়মনীতি মেনেই মায়াপুরে শুরু হবে এই রথ উৎসব। তবে অবশ্যই জনসমাগম ছাড়া।পুরো ঘটনাটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে দেখতে পাবেন ভক্তরা।শুধু তাই না এই রথযাত্রা উৎসবে ডিজিটালি ‘ যজমান’-ও হতে পারবেন ভক্তরা! তার জন্য অবশ্য রেজিস্ট্রেশন করতে হবে তাঁকে যা একেবারেই বিনামূল্য। যিনি রেজিস্টার করবেন, তাঁকে একটি কোড এবং নির্দিষ্ট সময় উল্লেখ করে একটি লিঙ্ক পাঠানো হবে। বিশদ তথ্য দেওয়া হবে কো-অর্ডিনেটরের ব্যাপারেও। মোট ১০৮টি রথ থাকবে। প্রতিটি রথ টানবেন ইসকনের একেকজন নেতা।
ডিজিটালি এই রথ উৎসবের এক সুচারু পরিকল্পনা করার কথা বিস্তারিতভাবে জানানো হয়েছে ইসকন কর্তৃপক্ষের তরফে। বলা হয়েছে, সকাল ১০ টা নাগাদ ১০৮ দিকে রথ বেরোবে। যে ভক্তদের কাছে কোড আছে, তাঁরা নির্দিষ্ট সময় অনুযায়ী আরতি এবং ভোগ দিতে পারেন। এরপর রথ পরবর্তী যজমানের কাছে যাবে। পরদিন সকাল সাড়ে সাতটা পর্যন্ত এরকম চলবে।’ ইসকন কর্তৃপক্ষের আশা, মোটামুটি ৩০,০০০ হাজার পরিবার এই ডিজিটাল রথযাত্রায় অংশ নেবেন।

You may also like

2 comments

Leave a Reply!