Home দেশ সুশান্ত কাণ্ড: সাঁড়াশি চাপ ক্রমশ শক্ত করছে সিবিআই

সুশান্ত কাণ্ড: সাঁড়াশি চাপ ক্রমশ শক্ত করছে সিবিআই

by banganews

মুম্বই, ২৬ অগাস্ট, ২০২০: সুশান্ত কাণ্ডে সাঁড়াশি চাপ ক্রমেই বাড়াচ্ছে সিবিআই। পরবর্তী তদন্ত প্রক্রিয়া কী ভাবে চলবে, তা স্থির করতে এদিন সকালে বৈঠকে বসেন নার্কোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর শীর্ষ আধিকারিকরা।
আজ ফের সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি সুশান্তের রুম মেট সিদ্ধার্থ পিঠানি। গত কয়েকদিন ধরেই সিদ্ধার্থকে লাগাতার জিজ্ঞাসাবাদ করছেন তদন্তকারীরা। তবে তাঁর আর সুশান্তের রাঁধুনি নীরজের বয়ান কিছুতেই মিলছে না বলে সূত্রের খবর।

আরও পড়ুন অনলাইন ফুড ডেলিভারি সংস্থার নামে প্রতারণা, প্রায় ৯৫ হাজার টাকা খোয়ালেন মহিলা চিকিৎসক

এর পরের ধাপ হল রিয়া চক্রবর্তীকে জিজ্ঞাসাবাদ। সিবিআই বলছে, সমন পাঠানো হয়েছে তাঁকে। কিন্ত অভিনেত্রীর আইনজীবীর দাবি, তাঁর মক্কেলের কাছে কোনও সমন এসে পৌঁছয়নি। এই কারণে এখন বড় প্রশ্ন উঠছে, কোথায় গেলেন রিয়া চক্রবর্তী? মুম্বইয়ের সান্তাক্রুজ এলাকায় যে অ্যাপার্টমেন্টে থাকেন রিয়া ও তাঁর পরিবার, সেই প্রাইম রোজ বহুতলে নিজের ফ্ল্যাটে গত ৪ দিন ধরেই দেখা যায়নি রিয়া বা তাঁর পরিবারের কোনও সদস্যকে। এখন প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছে তা হল, তাহলে কি রিয়া চক্রবর্তী ফেরার হয়ে গেলেন?
এদিকে সুশান্ত সিংহের অ্যাকাউন্টের আর্থিক লেনদেন সম্পর্কিত তদন্তে এবার শ্রুতি মোদির সহযোগী জয়া শাহকে তলব করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সূত্রের খবর, সুশান্ত সিংহের অ্যাকাউন্ট থেকে ৬২ লক্ষ টাকা কোয়ান ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট নামক সংস্থার অ্যাকাউন্টে পাঠানো হয়েছিল। সেখান থেকে আবার ওই টাকা রিয়া ও সৌভিকের অ্যাকাউন্টে চলে যায়। এই কোয়ান ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট সংস্থার কনসালটিং ম্যানেজার হলেন জয়া শাহ। তাই তাঁকে তলব করে প্রশ্ন করতে চায় ইডি।
অন্যদিকে, সুশান্ত-মামলায় এবার কুপার হাসপাতাল ও মুম্বই পুলিশকে নোটিস মহারাষ্ট্র মানবাধিকার কমিশনের। কীভাবে রিয়াকে মর্গে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হল, সে সম্পর্কিত তথ্য জানতে চেয়েছে কমিশন।

আরও পড়ুন সাত সকালে ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল বাংলা

এই তদন্তের সূত্র ধরেই জানা যাচ্ছে, সন্দীপ সিংয়ের কথায় রয়েছে রহস্য। নিজেকে সুশান্তের ঘনিষ্ঠ বন্ধু বলে দাবি করেছেন সন্দীপ সিং। অথচ তাঁর কল লিস্ট খতিয়ে দেখে গোয়েন্দারা অবাক। গত এক বছরে সুশান্ত আর সন্দীপের মধ্যে একটা ফোনও হয়নি। এমনকী সুশান্তের বাড়িতেও আসেননি সন্দীপ। সুশান্তের কর্মচারীরাও তাঁকে চেনেন না বলে জানিয়েছেন।

You may also like

1 comment

Leave a Reply!