Home দেশ খবরের আড়ালে রয়ে গেছেন যে প্রণব

খবরের আড়ালে রয়ে গেছেন যে প্রণব

by banganews

রাজনীতিবিদ প্রণব মুখোপাধ্যায়কে চিনি সকলে। কিন্তু অধ্যাপক প্রণব মুখোপাধ্যায়?
বিদ্যাসাগর কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক ছিলেন প্রণববাবু। সে প্রায় ষাটের দশকের কথা।
শুধু তাই নয়। সাংবাদিকতার জগতেও হাতেখড়ি হয়েছিল তাঁর। ‘দেশের ডাক’ নামে একটি পত্রিকায় নিয়মিত লিখতেন সাংবাদিক প্রণব মুখোপাধ্যায়। কম দিন অবশ্য। তবু একটা সময় এই পেশাতেই রুজিরোজগার ছিল দেশের প্রথম বাঙালি রাষ্ট্রপতির।

আরও পড়ুন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা অক্টোবরে

সাংবাদিক হোন বা অধ্যাপক, মন্ত্রী হোন বা রাষ্ট্রপতি, প্রণববাবু সারাদিন কতঘণ্টা কাজ করতেন জানেন? তাঁর মেয়ে শর্মিষ্ঠা জানিয়েছেন, সুস্থ শরীরে দিনে ১৮ ঘণ্টাই কাজ করতেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। ছুটি বলে কোনও শব্দ তাঁর অভিধানে ছিল না।
তাই তো তিনিই এ দেশের একমাত্র মন্ত্রী, যিনি বিভিন্ন সময়ে চারটি গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রক সামলাতে পেরেছেন—প্রতিরক্ষা, অর্থ, বাণিজ্য এবং বিদেশ। প্রতিটি দপ্তরেরই কাজ জানতেন তিনি। নিজে হাতে করতেনও।
আর দক্ষতা? ১৯৮৪ সালে সারা বিশ্বের সেরা অর্থমন্ত্রী হিসেবে পুরস্কৃত হন প্রণব মুখোপাধ্যায়। ইউরোমানি ম্যাগাজিনের পক্ষ থেকে তাঁকে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়।

আরও পড়ুন প্রণব উচ্চারিত হতে থাকে লালমাটির মিরাটিতে

প্রণববাবুই এ দেশের একমাত্র অর্থমন্ত্রী, যিনি সাতটি বাজেট পেশ করতে পেরেছেন। এখনও অবধি এ এক বিরল রেকর্ড।
জীবনের শেষ চল্লিশ বছর একটানা ডাইরি লিখেছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। তাঁর ইচ্ছে ছিল, নিজের জীবৎকালে নয়, বরং মৃত্যুর পর তাঁর ডাইরি প্রকাশিত হবে।
প্রথম বাঙালি হিসেবে রাষ্ট্রপতির আসনে বসার পর সাত-সাতটি প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ করেছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। তাদের মধ্যে একটি ছিল কাসভের, আর একটি আফজল গুরুর।
তবে এতকিছুর পরও অধ্যাপনাটাই তাঁর সহজাত। দেশের একমাত্র রাষ্ট্রপতি, যিনি শিক্ষক দিবসের দিন দিল্লির এক সরকারি স্কুলে পড়ালেন রাজনৈতিক ইতিহাস।
গদি, পরিচয়, ক্ষমতা—সবকিছুর বাইরে কিছু মানুষ তো আগত, অনাগত কালের জন্য জন্মশিক্ষক। বরাবর।

You may also like

3 comments