Home বঙ্গ স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে করোনা মুক্ত জেলা গড়ার লক্ষ্যে মন্ত্রী শুভেন্দু

স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে করোনা মুক্ত জেলা গড়ার লক্ষ্যে মন্ত্রী শুভেন্দু

by banganews

তমলুকঃ মারন ভাইরাস করোনা ভাইরাসের প্রকোপের মধ্যেই দেশের ৭৪তম স্বাধীনতা দিবস শনিবার।তাই এই দিনটিকে সামনে রেখে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মানুষদের আরো বেশী করে করোনার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানালেন রাজ্যের পরিবহন,সেচ ও জল সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী শুভেন্দু অধুকারী।
শুক্রবার তমলুকের তাম্রলিপ্ত স্বাধীনতা দিবস উদযাপন কমিটি ও সতীশ সামন্ত ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের উদ্যোগে তাম্রলিপ্ত রাজময়দানে সমস্ত স্বাস্থ্য বিধিনিষেধ মেনে ” ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস ” উদযাপন করা হল ।

আরও পড়ুন এক মাসের রাজনৈতিক তরজার ইতি, আস্থা ভোটে জিতল গেহলট সরকার

এই উপোলক্ষ্যে এদিন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ৩০০ টি ক্লাব , ৫টি পৌরসভা ও ২৫টি পঞ্চায়েত সমিতিকে পালস অক্সিমিটার , প্রেসার মাপার যন্ত্র , ডিজিটাল থার্মোমিটার ও ১লক্ষ মাস্ক প্রদান করা হয় ।রাজ্যের পরিবহন,সেচ ও জল সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী তথা সতীশ সামন্ত ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের সভাপতি শুভেন্দু অধিকারীর উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় ।

রাজ্য তথা জেলা জুড়ে মারন ভাইরাস করোনার প্রকোপ দেখা দিতেই পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তিনটি কোভিট হাসপাতাল পাঁশকুড়ার বড়মা,চন্ডীপুরে মাদার ও কাঁথির সঞ্জীবনি হাসপাতালে সময়ে সময়ে চিকিৎস্যার প্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী তুলে দিয়েছেন।

আরও পড়ুন সুপ্রিম কোর্টে রেজিস্ট্রারদের বিরুদ্ধে মামলা, ৫০ পয়সার কয়েনে জরিমানা বার কাউন্সিলের

এবার করোনার বিরুদ্ধে লড়াই আরো তৃনমূল স্তরে পৌঁছে দিতে রাজ্যের পরিবহন,সেচ ও জল সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী তথা সতীশ সামন্ত ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের সভাপতি শুভেন্দু অধিকারী এই উদ্যোগ নিয়েছেন বলে আয়োজকদের থেকে জানানো হয়েছে।তাঁরা জানিয়েছেন জেলার বিভিন্ন প্রান্তের ৩০০টি ক্লাব ,পাঁচটি পৌরসভা ও ২৫টি পঞ্চায়েত সমিতির হাতে করোনার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়তে এবং সচেতনতার জন্যে প্রয়োজনীয় পালস অক্সিমিটার , প্রেসার মাপার যন্ত্র , ডিজিটাল থার্মোমিটার ও মাস্ক থাকায় সেই প্রচেষ্টা আরো সহজ হবে বলে জানিয়েছেন তাঁরা।এদিন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী নিজের জেলার ইতিহাস তুলে ধরে লড়াইয়ে জারি থাকবে, যে কোন সমস্যায় আমরা সামনে থেকে লড়াই করে যাবো। আমাদের জেলা স্বাধীনতা আন্দোলনে প্রথমসারিতে, পড়াশোনা গত আট বছর ধরে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকে প্রথমস্থান অধিকার করে চলেছে। এই জেলার মানুষ লড়াই করতে জানে। আগেও করেছে, এখনো করছে আগামী দিনেও করবে।।

You may also like

2 comments

Leave a Reply!