Home বঙ্গ আরটিপিসিআর টেস্ট করতে প্রত্যন্ত এলাকায় ভ্রাম্যমাণ গাড়ি

আরটিপিসিআর টেস্ট করতে প্রত্যন্ত এলাকায় ভ্রাম্যমাণ গাড়ি

by banganews

হলদিয়া, ২৬ অগাস্ট, ২০২০ঃ দিন দিন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হচ্ছে। কখনো উপসর্গ দেখা দিচ্ছে আবার কখনো বা উপসর্গ দেখা যাচ্ছে না। এইসব তালবাহানা মাঝে মানুষ থাকতে চাইছেনা তাই পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়ে লাইক দিচ্ছে করোনা পরীক্ষার জন্য। সেখানেও পরীক্ষা লিমিটেড থাকায়, কখনো কখনো ফিরে আসতে বাধ্য হচ্ছে মানুষ। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সহযোগিতায় করোনা পরীক্ষার জন্য ভ্রাম্যমাণ গাড়ির ব্যবস্থা করেছেন। জেলা সদর দপ্তর কিংবা স্বাস্থ্য বিকাশ কেন্দ্র থেকেই এই ভ্রাম্যমাণ গাড়ির বুকিং করলেই মিলে যাবে পরীক্ষা ব্যবস্থা।

আরও পড়ুন হাসপাতাল থেকে নিখোঁজ করোনা রোগী, অভিযোগ কিডনি পাচারের

হলদিয়া সুতাহাটা ব্লকের ভাতৃ সংঘের পরিচালনায় এই ভ্রাম্যমাণ গাড়ির বুকিং করলো করোনা টেস্ট এর জন্য। প্রত্যন্ত গ্রামের মানুষ, তাদের ১০ কিলোমিটার দূরে হাসপাতালে গিয়ে লাইন দেওয়া খুবই কষ্টসাধ্য। সুতাহাটা ব্লকের বাহার গ্রামের মানুষের সাহায্যার্থে এই করোনা টেস্ট এর ব্যবস্থা করলেন ভাতৃ সংঘ। এই করোনা পরীক্ষার জন্য স্বতঃস্ফূর্তভাবে গ্রামের মানুষ এগিয়ে এলেন। র‍্যাপিড টেস্ট কিংবা টিউ টেস্ট দুটি টেস্টই করলেন। ভ্রাম্যমাণ গাড়ির মধ্যেই ডাক্তার বাবু এবং অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রায় 100 জনের মতো গ্রামের মানুষের করোনা টেস্ট করালেন। গ্রামের মানুষজন খুবই উৎসাহিত এই পরীক্ষা করতে পারায়।
করোনা টেস্ট করতে আসা ডাক্তার ডঃ সৌভিক মহাপাত্র বলেন, এই ভ্রাম্যমান গাড়ির জন্য প্রত্যন্ত গ্রামের মানুষের খুবই সুবিধা হচ্ছে। পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় প্রায় প্রতিদিন গড়ে 40 হাজার করোনা পরীক্ষা করা যাচ্ছে। আরটিপিসিআর ও র‍্যাপিড দুটো ধরনের টেস্ট এখানে করা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন অনলাইন ফুড ডেলিভারি সংস্থার নামে প্রতারণা, প্রায় ৯৫ হাজার টাকা খোয়ালেন মহিলা চিকিৎসক

ভাতৃ সংঘ ক্লাবের সম্পাদক প্রণব মান্না বলেন, “সারা বছরই সমাজসেবামূলক বিভিন্ন প্রোগ্রাম আমরা করে থাকি। গ্রামের মানুষজন এখানে থাকে তাই তাদের জন্য এই করোনা পরীক্ষা করতে পারায় আমরা খুশি। এটি প্রথম পর্যায় শুরু করলাম এরপরে আরো অনেকবার করার ইচ্ছা আছে।”

You may also like

1 comment

Leave a Reply!