Home ফিচার প্রকৃতি পুরুষের মিলনোৎসব ‘ঝুলন’

প্রকৃতি পুরুষের মিলনোৎসব ‘ঝুলন’

by banganews
ঝুলন শ্রীকৃষ্ণের দ্বাদশ যাত্রার মধ্যে অন্যতম একটি যাত্রা। দ্বাপর যুগের পুরুষ – প্রকৃতির মিলনকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছিল ঝুলন । পুরুষ স্বয়ং শ্রী কৃষ্ণ আর পরমাপ্রকৃতি শ্রীমতী রাধিকা। বৃন্দাবন- মথুরাই ঝুলনের আদি স্থান। এই ‘ঝুলন’ শব্দটির আগমন ঘটেছে হিন্দি শব্দ ‘ঝুলনা’ থেকে। যার বাংলা অর্থ দোলনা।
ঝুলন কে কেন্দ্র করে রয়েছে একাধিক আচার- অনুষ্ঠান, রীতি রেওয়াজ । শ্রাবণ মাসের শুক্লা দ্বাদশী তিথি থেকে টানা পাঁচ দিন অর্থাৎ পরবর্তী পূর্ণিমা পর্যন্ত চলে এই উৎসব। বৈষ্ণবীয় মতে শ্রী রাধিকা ও কৃষ্ণের প্রেমের যুগল মূর্তিকে দোলনায় বসিয়ে উৎসবে মাতেন ব্রজবাসী। বিশ্বের নানান জায়গা থেকে লাখ- লাখ কৃষ্ণ ভক্তের আগমন ঘটে এই সমারোহে।
শ্রী কৃষ্ণ ও শ্রী রাধিকার প্রেমের পালা অনুযায়ী ছোট ছোট খেলনা, গাছ পালা, নুড়ি পাথর ও পুতুল দিয়ে তৈরি করা হয় নগর৷ নগরের মধ্যে থাকে পাহাড়- নদী সবই, পথকে করা হয় দুর্গম। দেখান হয় পুতুল রাধিকা ভরা শ্রাবণের বৃষ্টি -বাদল- ঝঞ্ঝাকে উপেক্ষা করেই হেঁটে যাচ্ছে কৃষ্ণের উদ্দেশ্যে, আর বহু দূরে যমুনার পাড়ে নিঠুর কানাই বাঁশি বাজাচ্ছে এক মনে। এভাবেই বর্ণিত হয় শ্রী রাধিকার অভিসার পালা। এমন করেই কালিয়া দমন, পুতনা বধ, রাক্ষস বধ এর মতো পালা গুলিরও কৃত্রিম রূপ দেওয়া হয় ঝুলনে। ভক্তরা নিবেদন করেন শ্রী কৃষ্ণের প্রিয় খাবার। ক্ষীর, ননী, সুজি, লুচি বা তালের বড়া দেওয়ার রেওয়াজ রয়েছে ৷
আরো পড়ুন
উত্তর ভারতের পাশাপাশি বাংলাতেও মহা সমারোহে সাজান হয় ঝুলন। কোথাও মেলা বসে৷ সেই মেলাকে কেন্দ্র করে একত্রিত হন বহু মানুষ।

You may also like

Leave a Reply!