Home বিনোদন টিকটক করছেন ? সাবধান! আপনার গোপন তথ্য চুরি যাচ্ছে এভাবেই

টিকটক করছেন ? সাবধান! আপনার গোপন তথ্য চুরি যাচ্ছে এভাবেই

by banganews
খুব অল্প সময়েই জনপ্রিয়তার শীর্ষে। সেই সঙ্গে বিতর্কও শীর্ষে। টিকটক, স্বল্প দৈর্ঘ্যের ভিডিও বানানোর চিনা অ্যাপ। গত কয়েক মাসে গুগল প্লে-স্টোরে কয়েক কোটি মানুষ এই অ্যাপ ডাউনলোড করার পরে এটি প্রায়ই বিভিন্ন কারণে খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে। কিন্তু এবার এই জনপ্রিয় অ্যাপটি হাতেনাতে ধরা পড়েছে অ্যাপলের হাতে।
সম্প্রতি আইফোনের নতুন অপারেটিং সিস্টেমের (আইওএস-১৪) আপডেট রিলিজ হয়েছে এবং এর মধ্যে একটি বিশেষ ফিচার রয়েছে। ওই বিশেষ ফিচারটি স্মার্টফোনে থাকলে, ব্যবহারকারীদের ডেটা কোন কোন অ্যাপ অ্যাকসেস করছে, তা শনাক্ত করে বলে দেওয়া যেতে পারে ফিচারের মাধ্যমে।
এই ফিচারটির মাধ্যমেই জানা গেছে, টিকটক দীর্ঘদিন ধরেই সারা পৃথিবী জুড়ে লক্ষ লক্ষ আইফোন ব্যবহারকারীর তথ্যের উপর নজর রাখত। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে, টিকটক প্রায়ই ইউজারদের ক্লিপবোর্ড অ্যাকসেস করত, যার সাহায্যে তাঁদের নোটগুলি পড়তে পারত টিকটক। ফোর্বস ম্যাগাজিনের একটি প্রতিবেদনে সম্প্রতি এই তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।
এখানেই শেষ নয়, ভারতের গ্রাহকদের ফোনেও নজরদারি চালিয়ে তারা সংগ্রহ করেছে তথ্য। এর আগেও সিকিউরিটি রিসার্চাররা প্রশ্ন তুলেছিলেন টিকটক অ্যাপ ব্যবহারকারীদের ডেটা প্রাইভেসি ইস্যু এবং সুরক্ষা নিয়ে। কারণ তখনও কিছু ক্ষেত্রে প্রমাণ মিলেছিল, এই অ্যাপের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের তথ্য কপি হয়ে যাচ্ছে। সেই সময়ে টিকটকের আসল সংস্থা বাইটড্যান্স জানিয়েছিল, এই সমস্যাটি অনিচ্ছাকৃত। পুরনো একটি গুগল বিজ্ঞাপনের জন্য এই সমস্যা হচ্ছিল। সেটি রিপ্লেস করা হয়েছে বলে দাবি করেছিল সংস্থাটি। এবং জানিয়েছিল, এর পরে আর কোনও তথ্য তারা ব্যবহার করছে না। কিন্তু সম্প্রতি আইওএস-১৪ আপডেট আসার পরে দেখা যাচ্ছে, স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর ওপরে গোপনে নজরদারি করতে পারে এমন অ্যাপগুলির তালিকায় রয়েছে টিকটকও। ক্লিপবোর্ডের ওই অ্যাকসেস থেকে টিকটক চাইলে ইউজারের পাসওয়ার্ড থেকে শুরু করে মেল পর্যন্ত পড়তে পারে।
টুইটার ইউজার জেরেমি বুর্গ, সপ্তাহের শুরুতে একটি স্ক্রিন রেকর্ডিং শেয়ার করেছেন যাতে আইফোন ক্লিপবোর্ডে এই স্নুপিংয়ের ঘটনাটি ধরা পড়েছে। বুর্গ জানিয়েছেন, তাঁর আইফোনে আইওএস-১৪ বিটা আপডেট ইনস্টল করার পরে এই ব্যাপারটি তাঁর নজরে আসে।
এই ঘটনাতেও অবশ্য নিজেদের দোষ অস্বীকার করে টিকটক একটি নতুন অজুহাত দিয়েছে। জানিয়েছে, তাদের একটি নতুন ফিচারের জন্য নাকি বিষয়টি ঘটছে তাদের অজান্তেই। কিন্তু বারবার এত ঘটনা অজান্তে কীভাবে ঘটে? টিকটক বলেছে, তারা ইতিমধ্যেই অ্যাপ স্টোরে তাদের অ্যাপের একটি আপডেটেড ভার্সন দিয়েছে এবং তাতে পুরনো ফিচারটি সরানো হচ্ছে, যাতে আর কোনও বিভ্রান্তি না ঘটে।
বিশেষজ্ঞদের দাবি, টিকটক সংস্থা অনুচিত কাজ করতে গিয়ে আবারও ধরা পড়েছে এবং এখন সেটা ঠিক করার কথা বলছে। একই ভুল বারবার তাদের সঙ্গে অনিচ্ছাকৃত ভাবে ঘটে চলেছে, এটা কি আদৌ বিশ্বাসযোগ্য!
তবে বারবার ধরা পড়লেও আদতে টিকটক অ্যাপের কোনও উন্নতি বা পরিবর্তন আদৌ ঘটেনি। তাই আইফোন ব্যবহারকারীরা যদি টিকটক ব্যবহার করতে চান তবে, অ্যাপটির সর্বশেষতম আপডেট যখনই আসবে তখনই ইন্সটল করতেই হবে। এছাড়া ডিভাইসটি আইওএস-১৪ ভার্সনের উপযোগী হলে অবশ্যই নতুন অপারেটিং সিস্টেমের বিটা ভার্সন ডাউনলোড করে নিতে হবে নিজের নিরাপত্তার খাতিরে।
সমস্যা যেহেতু শুধু আইফোনের নয়, সমগ্র দেশের বহু মানুষ টিকটিক ব্যবহার করেন এবং ভারতের গ্রাহকদের ওপর নজরদারি করা হয়েছে তাই সুরক্ষার স্বার্থে বিশেষজ্ঞদের মতামতকে গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন। ক্ষণিক এর আনন্দ যেন নিজেদের নিরাপত্তা নষ্ট না করে সেদিকে প্রত্যেকের সচেতন হওয়া প্রয়োজন বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞ মহল৷

You may also like

1 comment

Leave a Reply!