Home বিনোদন জিৎ vs সব্যসাচী চক্রবর্তী: বাজি ধরবেন কার হয়ে?

জিৎ vs সব্যসাচী চক্রবর্তী: বাজি ধরবেন কার হয়ে?

by Shreetama Bhattacharyya

প্রকাশ্যে এল জিৎ এবং সব্যসাচী চক্রবর্তীর অন্তর্দ্বন্দ্ব। আর তার মধ্যে ফেঁসে গেল অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। অবশ্য মিমি চক্রবর্তীকে তুরুপের তাস করেই এই খেলায় জেতার বাজি ধরেছিলেন জিৎ। আর সেই বাজির পথের মধ্যেই চলে এলো প্রেম। তবে যেহেতু এখানে খেলাটা সমানে সমানে, তাই প্রেম হোক বা বদলা নেওয়ার ফন্দিফিকির, সবেতেই আছে অনেকগুলো টার্নিং পয়েন্ট।
টুইস্ট এন্ড টার্নে ভরপুর ‘বাজি’র ট্রেলার। পরিচালক অংশুমান প্রত্যুষ রেখেছে বলিউডি কায়দা। গোটা ট্রেলারে এতটাই টানটান উত্তেজনা রয়েছে যে চোখ সরানোর জো নেই।


ট্রেলার শুরুর প্রথম থেকেই রয়েছে ঝাঁঝালো ডায়লগ।
‘রিং মাস্টারও জানে রয়েল বেঙ্গল টাইগার শিকার করে খেলা দেখায় না।’


আছে শব্দের খেলা। টপ শটে টাইম ল্যপসে লন্ডন দেখানো গল্পের উত্তেজনায় বিদ্যুৎ গতি আনে। অনেকদিন পর বড় পর্দায় অভিনেতা অভিষেক ব্যানার্জি জিতের বাবা ভূমিকায়। ছবির চিত্রনাট্য ধরে বলতে গেলে আদিত্য ব্যানার্জির বাবা অমূল্য ব্যানার্জি। এর পরেই পর্দায় এন্ট্রি হয় সব্যসাচী চক্রবর্তীর। আর ডায়লগ, ‘আমি কিন্তু কখনো হারতে শিখিনি’। যার প্রয়োজন হলে কাউকে মারতেও দ্বিধাবোধ করে না।
ত্রিশ বছর আগে ঘটে যাওয়া একটি ঘটনার প্রতিশোধ তুলতে লন্ডনে ফেরত এসেছে আদিত্য। আদিত্য টার্গেট কৃষ্ণ কুমার। তবে কৃষ্ণ কুমার কে টার্গেট করতে আদিত্য প্রথমে যাকে নিজের প্রেমের গেমে আনতে চায় সে হল, কৃষ্ণ কুমারের মেয়ে কায়রা। কায়রার চরিত্রে অভিনয় করেছেন মিমি চক্রবর্তী। কায়রা চরিত্রটিকে যেটুকু দেখা যাচ্ছে ট্রেলারে তা দেখে মনে হচ্ছে পুরো গল্প জুড়ে সে এক দাপুটে, স্মার্ট, ইন্টেলিজেন্ট নারীর চরিত্রে। যার সঙ্গে কোনো রকম ওপর চালাকি চলে না।তাকে বাগে আনাও সোজা নয়।


যদিও প্রথমে খেলাটা ছিল পুরনো ডান্ডি নতুন করে জয়ের পতাকা ওড়ানো তবে মাঝে প্রেম এসে পড়ায়, আদিত্যর মনে হয় কৃষ্ণ কুমার তার টার্গেট,কায়রা নয়। কিন্তু কৃষ্ণ কুমার ধুরন্ধর প্লেয়ার।তাই এত বছর ধরে যে সন্তানকে তিনি আগলে রাখলেন তাকে একটা মাসের মধ্যেই আদিত্যের হয়ে যেতে দিতে পারেন না তিনি। তাই পুষ্পস্তবকের মধ্যে কাঁকড়া বিছে রাখা এবং আরো নানা গা কাঁটা দেওয়া ঘটনার সম্মুখীন হতে চলেছেন দর্শকরা প্রেক্ষাগৃহে। কারণ বাজি ধরেছেন জিৎ।
ট্রেলারের সর্বশেষে জিতের সংলাপ, ‘ আপনার সামনে যে বসে আছে সেও জীবনের প্রতিটা খেলা জিতেই এসেছে। ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে ট্রফিতে আমার নাম লেখা থাকতো।’

‘বাজি’র ট্রেলারের USP:

গা গরম করা ডায়লগ।

অনেকদিন পরে জিৎ একটি অ্যাকশন ছবিতে।

জিৎ মিমি জুটির রোমান্স।

নেগেটিভ চরিত্রে সব্যসাচী চক্রবর্তীকে পাওয়া অনেকদিন পর এক দারুণ চমক।

ট্রেলার এর বিভিন্ন জায়গায় সব্যসাচী চক্রবর্তীর একটি হাসির শব্দ ভেসে আসছে। আর সেই হাসিতে খুশির থেকে ভয়ের ইঙ্গিত বেশি।

 

You may also like

Leave a Reply!