Home বঙ্গ বছরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিনে ঘরে ঘরে হোক পতাকা উত্তোলন : জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

বছরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিনে ঘরে ঘরে হোক পতাকা উত্তোলন : জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

by banganews

কলকাতা, ৬ ই অগাস্ট, ২০২০ :  দেশব্যাপী ক্রমবর্ধমান করোনাভাইরাস সংক্রমণের জন্য এবার ১৫ ই অগাস্ট পালন করা হবে বিধিসম্মত সতর্কীকরণ মেনে। ইতিমধ্যেই নির্দেশিকা এসেছে যে কোন রকমের বড় জমায়েত করা যাবে না। স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ, রেড রোডে বিরাট কুচকাওয়াজও হচ্ছে না এবার। নির্দিষ্ট স্থানে সম্মিলিত হয়ে স্বাধীনতা উদযাপনের পরিবর্তে ব্যক্তিগত স্তরে প্রত্যেকে নিজের বাড়িতে পতাকা উত্তোলন করুক এমনই প্রস্তাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন :  “দিদিই আমার নেত্রী”, ফের তৃণমূলে ফিরে মন্তব্য হুমায়নের

বৃহস্পতিবার নবান্নের এক সাংবাদিক সম্মেলনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন যে আসন্ন স্বাধীনতা দিবসের উদযাপনে এই বছর বেশ কিছু প্রতিবন্ধকতা আছে। তিনি আরও বলেন “স্বাধীনতা দিবস আমাদের জীবনের সবচেয়ে বড় দিন, এটি স্মরণীয়-বরণীয় ঐতিহাসিক গণতান্ত্রিক – সবদিক থেকে বড় দিন।”

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে উক্ত বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো কটাক্ষ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের অনুষ্ঠানে এসে তিনি জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে উক্ত দিনটিকে ঐতিহাসিক বলে ঘোষণা করেছিলেন। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূলের ধর্মনিরপেক্ষ ও জাতীয়তাবাদী অবস্থান স্পষ্ট করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন :  বেসরকারি বাসের কর সাময়িক মকুবের সিদ্ধান্ত নবান্নের

জাতীয় রাজনীতির এই দুই নেতা-নেত্রীর বক্তৃতাকে পাশাপাশি রাখলে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের রাজনৈতিক উত্তাপ বাস্তবিকভাবে অনুভব করা যায়। ভূমি পূজার অনুষ্ঠানে মোদি তার বক্তৃতায় একটি অংশে ৫ ই অগাস্ট দিনটির গুরুত্ব স্বাধীনতা দিবসের সঙ্গে তুলনীয় বলে ঘোষণা করেন। ঠিক যেন এরই প্রত্যুত্তরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আজকে বললেন- ”এই দিনের সঙ্গে অন্য কোন দিনের তুলনা হয়না, স্বাধীনতা দিবস আমাদের জীবনের সবচেয়ে বড় দিন।”

আজকের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী লকডাউনের দিন পরিবর্তনের কারণও ব্যাখ্যা করেন। তিনি জানিয়েছেন বাংলার সংস্কৃতিকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেন তিনি, ঠিক সেই জন্যই মনসা পূজোর দিন লকডাউন প্রত্যাহার করেছে রাজ্য সরকার। বিবিধের মাঝে মহান মিলনের চিত্র স্পষ্ট করতে এদিন পার্সিদের নববর্ষ কথাও উল্লেখ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

You may also like

2 comments

Leave a Reply!